মাকে ভারত ভ্রমণ করাতে স্কুটার নিয়ে বেরিয়ে পড়ল ছেলে

রূপা সাহা,২৫অক্টোবর ২০১৯: বছর চারেক আগে বৃদ্ধা হারিয়েছেন তাঁর স্বামীকে। তারপর থেকে একমাত্র ছেলেই। কর্ণাটকের মহিশূরের বাসিন্দা চূড়ারত্না দেবীর সাধ জেগেছে সমগ্র ভারতের তীর্থস্থানগুলি যদি দর্শন করা যেত! তাই ছেলে দক্ষিণমূর্তি কৃষ্ণকুমার মায়ের ইচ্ছের কথা শুনে চাকরি ছাড়তে বাধ্য হয়, কারণ মাকে সারা ভারতের তীর্থস্থানগুলি দর্শন করাতে যতদিন সময় দরকার ততদিন সময় তিনি পেতেন না। তিনি বৃদ্ধা মাকে নিয়ে শুধু তীর্থক্ষেত্রই নয় বরং সারা ভারত ঘুড়িয়ে দেখাবেন।

   কৃষ্ণকুমার বেঙ্গালুরুর একটি বেসরকারী ব্যাংকে চাকরি করতেন। মার বয়স ও অসুবিধার কথা মাথায় রেখে পাবলিক ট্রান্সপোর্টের সাহায্য ছাড়াই, বাবার দেওয়া কুড়ি বছর আগের স্কুটার নিয়ে বেরিয়ে পড়লেন। এখনও পর্যন্ত মাকে নিয়ে কেরালা, তামিলনাড়ু, অন্ধ্রপ্রদেশ, কর্ণাটক, পন্ডিচেরি, মহারাষ্ট্র, গোয়া, ঝাড়খন্ড, ওড়িশা, বিহার এবং পশ্চিমবঙ্গ হয়ে আসাম, সিকিম, মেঘালয়, ত্রিপুরা স্কুটারে চড়েই ঘুরে নিয়েছেন কৃষ্ণকুমার। শুধু দেশের ভেতরই নয় দেশের বাইরেও নেপাল, ভুটান থেকে মায়ানমার পর্যন্ত ঘুরেছেন তিনি। যেমন ভাবনা তেমন কাজও।

   কোনোরকম আর্থিক সাহায্য ছাড়াই মাকে নিয়ে এখনও পর্যন্ত পাড়ি দিয়েছেন ৪৮ হাজার ১৬৫ কিমি পথ। রাত কাটিয়েছেন বিভিন্ন তীর্থস্থানে, মঠে, মন্দিরে। বিভিন্ন স্থানের মানুষের আন্তরিকতা মুগ্ধ করেছে কৃষ্ণকুমার ও তাঁর মাকে।

   ইতিমধ্যেই এই ঘটনা পৌঁছেছে মাহিন্দ্রা কোম্পানির কর্ণধার আনন্দ মাহিন্দ্রার কানে। কৃষ্ণকুমারের তাঁর মায়ের সাধ পূরণের চেষ্টায় আপ্লুত তিনি। তিনি এও জানিয়েছেন, নিজের সংস্থার একটি স্কুটার কৃষ্ণকুমারকে উপহার দেবেন। মাতৃভক্তির এই সুন্দর ঘটনা সোশ্যাল মিডিয়ায় নজর কেড়েছে হাজার হাজার মানুষের।
noychoy

Leave a Reply

Your e-mail address will not be published. Required fields are marked *

1
welcome to "NOYCHOY".Thanks for joining our community . we will reply you soon.
Powered by